Thursday, November 15, 2018

Besan laddu বেসন লাড্ডু - homemade

HOW TO MAKE BESAN laddu / বাড়িতে বেসন লাড্ডু বানানোর TIPS

Chickpea Flour Balls



উপকরণ :
বেসন - ২০০ গ্রাম
ঘি - ১৭৫ গ্রাম
চিনি (গুঁড়ো) - ১৫০ - ১৬০ গ্রাম
এলাচ (গুঁড়ো) - ৪-৫ টা
আমন্ডস্ (কুঁচি করা) - ৭-৮ টা বা পছন্দমত
পেস্তা (কুঁচি করা) - ৭-৮ টা বা পছন্দমত

 বিধি :

প্রথমে একটি কড়াই আঁচে বসিয়ে তাতে উপকরণে উল্লেখ করা মাপের ৩/৪ ভাগ ঘি দিয়ে দিন। আঁচ একেবারেই কম করে রাখুন। ঘি গললে সাথে সাথে সমস্ত বেসন-টুকুই ওই ঘি-এর মধ‍্যে মিশিয়ে একদম কম আঁচে নাড়তে থাকুন। আঁচ কখন‌ই বাড়াবেন না।
বেসন প্রথম দিকে ঘি-এর মধ‍্যে পুরোপুরি মিশে যাবে না। ওই মিশ্রণটা অনবরত নাড়িয়ে যেতে হবে। ১ মিনিট এভাবে নাড়ার পর ঘি আস্তে আস্তে বেসন-এর সাথে মিশতে আরম্ভ হবে। যদি দেখেন যে এই সময়েও ঘি আর বেসন একসাথে না মেশে, তবে সেক্ষেত্রে বাকি পড়ে থাকা ঘি টুকুও এই সময় কড়াই-এর মিশ্রণটির মধ‍্যে ঢেলে দিন।
লক্ষ‍্য রাখবেন বেসন যেন কড়াইতে পোঁড়া না লেগে যায়। সমানে নাড়িয়ে যেতে হবে সেক্ষেত্রে।
এভাবে আর‌ও মিনিট দুয়েক নাড়ার পর দেখুন বেসনের রঙ পরিবর্তন হচ্ছে কিনা। দেখবেন বেসন সোনালী রঙের হয়ে উঠবে। যতক্ষণ তা না হচ্ছে এভাবে কম আঁচেই বেসন নাড়িয়ে যান। তবে দেখবেন বেসন-ঘি-এর মিশ্রণটি যাতে একটু পাতলা থাকে। দলা পাকানো যাতে না হয়।
২-৩ মিনিট বাদেই বেসনের রঙ পাল্টে যাবে। ওই সময় এলাচ গুঁড়ো মিশিয়ে নিন বেসনের সাথে।
সোনালী রঙ হলেই ২-৩ চামচ জল কড়াইয়ের মধ‍্যে থাকা বেসনের মধ‍্যে ভালো করে ছিটিয়ে দিন। এতে বেসন দানা দানা হবে দোকানের মতো। হাত দিয়ে জল ছিটিয়ে দিয়ে খুন্তি দিয়ে পুরো বেসনের সাথে জল মিশিয়ে নিন। কিছুক্ষণ নেড়ে নিয়ে গ‍্যাস বন্ধ করেন ফেলুন।
এবার একটি পরিষ্কার থালার মধ‍্যে বেসন ঢেলে ফেলুন। না হলে কড়াইতে রাখলে, কড়াইয়ের তাপে বেসন তখন‌ও কুক (রান্না) হতেই থাকবে। এবার থালায় ঢালা বেসন ঘরের তাপমাত্রায় (room temperature) আসলে, তাতে অল্প অল্প করে গুঁড়ো চিনি মেশাতে থাকুন। বেসন গরম অবস্হায় চিনি দিলে, তা গলে যাবে। তাই সবসময় বেসন ক্ষাণিকটা ঠান্ডা হলে তারপরেই চিনি দেওয়া উচিৎ।
এবার কিছুটা করে চিনি গুঁড়ো বেসনের মধ‍্যে দিয়ে পরিষ্কার হাতের সাহায‍্যে মাখতে থাকুন। ৩/৪ ভাগ চিনি দিয়ে মাখা হলে প্রয়োজনে মিশ্রণ থেকে একটু মুখে দিয়ে দেখুন। কারণ খাবারে মিষ্টির পরিমাণ কারুর একটু বেশী পছন্দের, আবার কারুর একটু কম। তাই এটা দেখে নেওয়াই ভালো। চিনি দিয়ে মাখা হল সেখান থেকে হাতের মুঠোয় বেশ খানিকটা করে নিয়ে, চেপে চেপে বলের আকার গড়ুন। শক্ত বল হলে পরে দু-হাতের তালুর সাহায‍্যে বলটিকে মসৃণ করুন। প্রতিটা বল ধৈয্য ধরে আস্তে আস্তে গড়ুন। কারণ তাড়াহুড়ো করলে লাড্ডু ভেঙ্গে যাবে। এভাবে বাকি লাড্ডুগুলো গড়ে ফেলুন। তবে খুব বেশীক্ষণ মিশ্রণটি ফেলে রাখবেন না। এতে লাড্ডুর বাধন ছেড়ে যাবে।
সব লাড্ডু বানানো হয়ে গেলে সাজানোর জন‍্য অল্প কিছু পেস্তা কুচি ও আমন্ডস্ কুচি লাড্ডুগুলোর ওপর ছড়িয়ে দিলেই তৈরী বেসনের লাড্ডু।
এই বেসনের লাড্ডু একটি কাঁচের বয়ামে করে ৩-৪ সপ্তাহ ধরে রেখে খেতে পারবেন।
এক্ষেত্রে লাড্ডুতে গুঁড়ো চিনির বদলে তাগার দিলে তা আর‌ও সুস্বাদু ও দীর্ঘমেয়াদী হয়। আনন্দে উপভোগ করুন বেসনের লাড্ডু।

★ লাড্ডুর জন‍্য বেসন রান্না করার সময় জল না দিলে দোকানের মত ওরম দানা দানা হবে না। মুখে দিলে লাড্ডু খুব মসৃণ লাগবে। কিন্তু বেসনের লাড্ডু দানা দানা হয়।

No comments:

Post a Comment

what is Aloevera and benefits of Aloevera

what is Aloevera and benefits of Aloevera                        aloe vera plant Long History of Therapeutic Use Aloe vera is a...